1. jitsolution24@gmail.com : admin :
  2. desk@dailybdtimes24.com : desk report : desk report
  3. m.gsmbangla@gmail.com : dhaka desk : dhaka desk
  4. desk2@dailybdtimes24.com : Dhaka Desk : Dhaka Desk
  5. info@dailybdtimes24.com : Office desk : Office desk

করোনার ভ্যাকসিনের জন্য এক হাজার কোটি টাকা আগাম বরাদ্দ : নৌপ্রতিমন্ত্রী

  • Update Time : শনিবার, ২১ নভেম্বর, ২০২০
  • ২৯ Time View

নিউজ ডেস্ক : নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী এমপি বলেছেন, করোনা মোকাবিলায় আমেরিকা-ইউরোপ যেখানে ব্যর্থ হয়েছে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেখানে সফল হয়েছেন। বাংলাদেশের জনগণ যেন আগেভাগে করোনার ভ্যাকসিন পায় সেজন্য তিনি এক হাজার কোটি টাকা আগাম বরাদ্দ দিয়েছেন।

প্রতিমন্ত্রী শনিবার (২১ নভেম্বর) দিনাজপুরের বিরল উপজেলার বিজোড়া উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ‘ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের জন্য গৃহ নির্মাণ’ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন ও সুধী সমাবেশে এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, করোনা নিয়ন্ত্রণে রাখতে আমেরিকা ব্যর্থ হয়েছে, তাদের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে কীভাবে প্রভাব ফেলেছে আপনারা দেখেছেন।

পৃথিবীর অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশের জনগণ মৃত্যুর মুখোমুখি হয়নি। জেলা উপজেলায় করোনা চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, শরণার্থীদের আশ্রয় দেয়ার ক্ষেত্রে যখন জার্মানি ও ইতালি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। তখন বাংলাদেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে ১২ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে অন্যান্যদের রাজনীতি যখন ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে। শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতি সেখানে সফলতার পরিচয় দিয়েছে। জাতীয় সংসদে যখন বিএনপি দলীয় সংসদ সদস্য বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৬ কোটি জনগণের নেতা। তখন আমরা গর্বিত হই। এ সত্য চাপিয়ে রাখা যাবেনা। শেখ হাসিনা শুধু বাংলাদেশে নয়, আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও এক আলোকিত নাম।

বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, দেশের নব্বই ভাগ কৃষক গ্রামে থাকেন; গ্রামে যেতে হবে। কিন্তু তাদের (জিয়া-খালেদা জিয়া) মনোযোগ গ্রামের দিকে ছিল না।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনার সরকারকে যখন বিশ্বব্যাংক বাঁধা দিয়েছিল যে কৃষিতে এই ভর্তুকি দেয়া যাবে না, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তখন বলেছিলেন, ‘বিশ্বব্যাংকের কথায় বাংলাদেশ চলবে না। বাংলাদেশ চলবে বাংলাদেশের মানুষের জন্য যেটা ভালো হয় সেইভাবেই বাংলাদেশ চলবে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের কৃষকদের ৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত সার, বীজ, কীটনাশকের জন্য যুদ্ধ করতে হয়নি। কিন্তু ২০০১ সালের পরে ২০০৬ সালের কথা স্মরণ করিয়ে বলেন, ২০০১ সাল থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত কৃষকরা সার পায়নি। বর্তমানে ২৪ টাকার সার ১৬ টাকায় করে দেওয়া হয়েছে।

 

এ খবরটি সোস্যাল মিডিয়াতে এ পোষ্ট করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর



© সমস্ত অধিকার সংরক্ষিত © 2020 dailybdtimes24.com এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
Site Customized By jitsolution.net